1 Answer

0 votes
by
করোনারি হৃদরোগের অন্যতম
প্রধান রোগ সৃষ্টি হয়
করোনারি ধমনিতে। ধমনির
ভেতর ব্লক সৃষ্টি হলে
পর্যাপ্ত O2 - সমৃদ্ধ রক্ত
হৃৎপেশিতে সংবহিত হতে
পারে না। ফলে হার্ট
ফেইলিউর ও হার্ট
অ্যাটাকের মতো মারাত্মক
পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে
পারে। এমন মারাত্মক
অবস্থা মোকাবিলায়
এনজিওপ্লাস্টি কার্যকর
ভূমিকা পালন করে।
এনজিওপ্লাস্টি ধমনির
ল্যুমেন থেকে ব্লক অপসারণ
বা হ্রাস করতে পারে এবং
শ্বাসকষ্ট ও বুকে ব্যথা উপশম
হয়। হার্ট অ্যাটাকের
সম্ভাবনা কমিয়ে জীবন
রক্ষায় অবদান রাখে।
যেহেতু বুক উন্মুক্ত করতে হয়
না সেহেতু কষ্ট, সংক্রমণ ও
দীর্ঘকালীন সতর্কতার
প্রয়োজন পড়ে না। বেলুন ও
স্টেন্ট পদ্ধতি একই সাথে
ব্যবহার করলে প্লাক-এর
পুনরাবির্ভাবের সম্ভাবনা
কমে যায়। মাত্র এক থেকে
কয়েক ঘন্টায় জীবন
রক্ষাকারী এ প্রক্রিয়া
সম্পন্ন হতে পারে এবং
কয়েক দিন পর থেকেই
হালকা কাজকর্ম করা সম্ভব।
সুস্থ হতে ৪ সপ্তাহের বেশি
লাগে না।
যাঁরা বৃক্কের অসুখে ভুগছেন,
কিংবা অ্যানজিওগ্রামের
সময় রঞ্জকের প্রতি
অ্যালার্জি দেখা দেয় এবং
যাঁদের বয়স ৭৫ বছরের বেশি
তাঁদের ক্ষেত্রে
এনজিওপ্লাস্টি কিছুটা
অসুবিধাজনক হতে পারে।

No related questions found

মনোভাব প্রকাশনী! আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং গোষ্ঠীর অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। সকলের মনোভাব প্রকাশের মাধ্যমে আমরা আমাদের জ্ঞান সমৃদ্ধ করতে পারি।
মনোভাব প্রকাশনী কি?
মনোভাব প্রকাশনী বাংলা প্রশ্ন ও উত্তর এর ওয়েবসাইট।
আপনার মনের কৌতহল মনোভাব কে প্রকাশ করুন। প্রশ্ন করে মনোভাব প্রকাশ করুন। উত্তর দিয়া আপনার মনোভাব কে জানিয়ে দিন। সাহায্য করুন অপরের মনোভাবের জড়তাকে জাগ্রত করতে। শিখিয়ে দিন এতে আপনারই জ্ঞান বৃদ্ধিপাবে।
...